মৌলভীবাজারে ধর্ষণবিরোধী আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলা

প্রকাশিত: 10:05 AM, October 9, 2020

দেশব্যাপী ধর্ষণ বন্ধ ও ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মৌলভীবাজারে আন্দোলনরত প্রগতিশীল বাম সংগঠনের নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করেছে ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এ হামলায় পাঁচজন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মৌলভীবাজার প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, প্রতিবাদ সমাবেশ চলাকালীন হঠাৎ করে ছাত্রলীগের ১৫-২০ জন নেতাকর্মী এসে হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর ১২টার দিকে চৌমুহনা থেকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান করলে কিছুক্ষণের মধ্যে ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আসে। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আন্দোলনকারীদের ওপর অতর্কিত হামলা করে। এ সময় উপস্থিত কয়েকজন সংবাদকর্মী ও সাধারণ লোক হামলা প্রতিহত করার চেষ্টা করেন।

হামলায় আহতরা হলেন- ছাত্রফ্রন্টের মৌলভীবাজার জেলা সংসদের সহ-সভাপতি বিশ্বজিৎ নন্দী, দফতর সম্পাদক রাজীব সূত্রধর, ছাত্র ইউনিয়ন মৌলভীবাজার জেলা সংসদের শিক্ষা ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক শামীম আহমেদ, সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আবদুর রইয়ান শিপু ও মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ সংসদের সাধারণ সম্পাদক শিহাব আহমেদ। পরে আহতদের উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি রেহনোমা রুবাইয়াৎ বলেন, আন্দোলন চলাকালীন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমাদের ওপর হঠাৎ করে অতর্কিত হামলা চালায়।

তিনি আরও বলেন, একটা ভালো অনুষ্ঠান করলেও ছাত্রলীগ এসে হামলা করে। ধর্ষণ, চুরি ও ডাকাতিসহ সব অপরাধের সঙ্গেই ছাত্রলীগ জড়িত।

মৌলভীবাজার সদর মডেল থানার ওসি ইয়াসিনুল হক বলেন, ছাত্রলীগের হামলার বিষয়টি আমার জানা নেই।

ঘটনাস্থলে পুলিশের ফোর্স উপস্থিত ছিল, তারা কি আপনাকে এ বিষয়টি অবগত করেননি? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আন্দোলনকারীদের মধ্যে হাতাহাতির বিষয়টি জানিয়েছে। তবে ছাত্রলীগ হামলা করেছে এমনটি জানাননি।

এ বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগের মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি আমিরুল হোসেন চৌধুরী আমীন ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলমের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।