নারীলো’ভী শ্র’মিক নেতার হাত ধরে ঘর ছাড়া প্র’বাসীর স্ত্রী এখন কারা’গারে

প্রকাশিত: 7:28 PM, October 15, 2020

নেত্রকোনার দুর্গাপুরের সেই শ্রমিক লীগ নেতা লেবার সরদার আলালের চতুর্থ স্ত্রী’ মোছা. মনি আক্তার (২৫)’র জামিন নামঞ্জুর করেছেন বিজ্ঞ আ’দালত। তার পূর্বের স্বামী প্রবাসী কাউছার আহাম্ম’দ কাজলের (৩০) বড়ভাই মো. লাক মিয়ার (৫০)

দায়ের করা মা’মলায় দুর্গাপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে হাজিরা বা জামিন নিতে গেলে বিজ্ঞ আ’দালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

বিবরণে জানা যায়, নেত্রকোনা জে’লার কলমাকান্দা থা’নার উত্তর নাউরীপাড়া গ্রামের মৃ’ত হাজী আ. হেকিমের ছে’লে সৌদী প্রবাসী মো. কাউছার আহাম্ম’দ কাজল (৩০) দুর্গাপুর উপজে’লার কাঁকৈরগড়া গ্রামের মো. সাইফুল ইস’লামের মে’য়ে মনি আক্তার (২৫)কে

ইস’লামী সরা-সরিয়ত মতে বিগত ১৫/৬/২০১৪ ইং তারিখে বিয়ে করেন। তাদের একটি ৫ বছরের পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। বিয়ের পর সৌদী প্রবাসী মো. কাউছার আহাম্ম’দ কাজল একবার বাংলাদেশে এসেছিলেন।

সেই সুযোগে অর্থাৎ দুর্গাপুর চরমোক্তারপাড়া বসবাস করা অবস্থায় প্রতিবেশী নারীলো’ভী লেবার সরদার আলাল সৌদী প্রবাসী মো. কাউছার আহাম্ম’দ কাজলের স্ত্রী’ মোছা. মনি আক্তারের সঙ্গে অ’বৈধ স’ম্পর্ক গড়ে তোলে

এবং এক পর্যায়ে ওই প্রবাসী মো. কাউছার আহাম্ম’দ কাজলের সঙ্গে স্বামী-স্ত্রী’র স’ম্পর্ক ছিন্ন করার পরিবেশ ঘটায় বিভিন্ন উপায়ে রাতারাতি কোটিপতি হয়ে যাওয়া লেবার সরদার আলাল ওই প্রবাসীর স্ত্রী’ মনি আক্তার (২৫) কে চতুর্থতম বিয়ে করে লেবার সরদার আলাল।

এর আগে তিনটি বিয়ে করেন লেবার সরদার আলাল এবং তাদের ১ কন্যা ও ২ পুত্র সন্তান রয়েছে বলেও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়। প্রবাসী মো. কাউছার আহাম্ম’দ কাজল ১৬/১০/২০১৪ তারিখ থেকে ঘটনার দিন পর্যন্ত

বিভিন্ন সময়ে ও বিভিন্ন তারিখে বিকাশ ও ব্যাংকের মাধ্যমে তার স্ত্রী’ মনি আক্তারের কাছে নগদ ২৫ লাখ টাকা পাঠায়। তাছাড়া মনি আক্তারের বাবা সাইফুল ইস’লামকে সৌদি পাঠাতে ৮ লাখ টাকা হাওলাদ এবং ৫ ভরি স্বর্ণালংকার বাবদ আরো ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা মোট ৩৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা গত ২২ মে তারিখে ফেরত চাইতে গেলে মনি আক্তার সাফ জানিয়ে দেয় যে সে কোনো টাকা-পয়সা ফেরত দেবে না।

এরপর গত ৯ জুন ওই টাকা ফেরতের দাবিতে প্রবাসী মো. কাউছার আহাম্ম’দ কাজলের বড় ভাই মো. লাক মিয়া ১। মনি আক্তার পিতা-সাইফুল ইস’লাম, ২। সুফিয়া আক্তার স্বামী-সাইফুল ইস’লাম, ৩। রাকিব উল্লাহ পিতা- সাইফুল ইস’লাম, ৪। মোছা. রুনা আক্তার পিতা-সাইফুল ইস’লামকে আ’সামি করে দুর্গাপুর থা’নায় একটি অ’ভিযোগ দায়ের করেন।

পু’লিশি ত’দন্ত শেষে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় ১৩ জুন শনিবার অ’ভিযোগটি মা’মলা হিসাবে গণ্য করে তা ১৪ জুন যথারীতি আ’দালতে পাঠালে উক্ত মা’মলার ৪ আ’সামি সোমবার দুর্গাপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে হাজিরা বা জামিন নিতে গেলে বিজ্ঞ আ’দালত মোছা. মনি আক্তার (২৫)’র জামিন নামঞ্জুর করে জে’লহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। অ’পর ২, ৩ ও ৪নং আ’সামির শর্ত সাপেক্ষে জামিন দিয়েছেন বিজ্ঞ আ’দালত।