অশ্লীলতার আসর চালু রেখে ধর্ষণরোধে মৃত্যুদণ্ডের বিধান করা তামাশার শামিল: মাওলানা আফেন্দী

প্রকাশিত: 9:11 PM, October 16, 2020

ধর্ষণ, সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণ এবং জেনা-ব্যভিচার প্রতিরোধে সমমনা ইসলামী দলসমূহ ৬ দফা দাবীতে আজ (১৬ অক্টোবর) শুক্রবার জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট থেকে গণমিছিল বের করে বিজয় নগর মোড়ে বিশাল সমাবেশ করেছে।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর সভাপতিত্বে এতে সমমনা দলসমূহের শীর্ষ ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ধর্ষণ ও জেনা-ব্যভিচার প্রতিরোধে আইনের সঠিক প্রয়োগ এবং এই অনাচারের উৎস বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়ে বক্তব্য দেন।

সমাবেশে সমমনা দলসমূহের শরীক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় যুগ্মমহাসচিব ও ঢাকা মহনাগর সভাপতি মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি তার বক্তব্যে বলেন, “বাজারে আলুর কেজি ৫০ টাকা পেঁয়াজের কেজি ১০০ টাকা; আমরা কিন্তু আজ এর প্রতিবাদ করতে রাস্তায় আসিনি। আমরা সমাবেশে মিলিত হয়েছি ধর্ষণমুক্ত, ব্যভিচার মুক্ত, অনাচার মুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করতে। আমরা এসেছি মা-বোনদের ইজ্জত সম্মান রক্ষা করতে”।

তিনি বলেন, “আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, ডিজিটাল বাংলাদেশের অর্থ যদি হয়, নারীকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণ করা। ডিজিটাল বাংলাদেশের অর্থ যদি হয়, আইন শৃঙ্খলার দায়িত্বে বসে খুন-খারাবি তে জড়িত থাকা। ডিজিটাল বাংলাদেশ এর অর্থ যদি হয়, মনুষ্যত্ব ও মানবতাকে বিলীন করে দেওয়া। তাহলে আমরা এমন ডিজিটাল বাংলাদেশ চাই না, চাই না, চাই না। সংগ্রামী বিক্ষুব্ধ জনতা, এই ডিজিটাল বর্বরতার বিরুদ্ধে, এই ডিজিটাল নিষ্ঠুরতার বিরুদ্ধে প্রয়োজনে মুক্তিযুদ্ধের হাতিয়ার আরেকবার গর্জে উঠবে”।

মাওলানা আফেন্দী সমাবেশে উপস্থিতির উদ্দেশ্যে আরো বলেন, “সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলতে চাই, আপনারা একদিকে পানি ভরা পুকুরে নেমে গোসল করতে বলবেন, আরেকদিকে মৃত্যুদণ্ডের আইন করবেন! এ কারণে যে, তোমার হাঁটু যেন পানিতে না ভিজে। এটা জাতির সঙ্গে তামাশা ছাড়া আর কিছু নয়। একদিকে অশ্লীলতার জমজমাট আসর চলবে, যাত্রা চলবে, অশ্লীল সিনেমা চলবে, আরেকদিকে মৃত্যুদণ্ডের আইন করবেন; কোনদিন এই আইন ফলপ্রসূ হবে না”।

তিনি বলেন, “সারাদেশ থেকে আমাদের কাছে ফোন আসছে, হুজুর! প্রশাসন মাহফিল করতে দিচ্ছে না। অথচ আজ থেকে সিনেমা হল খুলে দেওয়া হচ্ছে। জাতির সাথে এই তামাশা বন্ধ করুন। নচেৎ সামনের দিনগুলোতে কাফনের কাপড় পরিধান করে রাস্তায় নামতে বাধ্য হবো, ইনশাআল্লাহ”।