গোপনে ১২ বছরের ছাত্রীকে বিয়ে করলেন ৬০ বছরের বৃদ্ধ!

প্রকাশিত: 6:28 AM, November 16, 2020

মেয়ের বয়স মাত্র ১২ বছর। পঞ্চম শ্রেণিতে লেখাপড়া করছে। কিন্তু এ বয়সেই মেয়েটিকে গোপনে বিয়ে দেন মা, নানি ও নানা। তাও আবার ৬০ বছরের বৃদ্ধের কাছে। তবে বাল্যবিয়ের অপরাধে শেষ পর্যন্ত বৃদ্ধ বরসহ তাদের বিভিন্ন মেয়াদে জেল-জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার সদরে। ইউএনও পূরবী গোলদার এ দণ্ড দেন।

দণ্ডিতরা হলেন- উপজেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের বৃদ্ধ বর মোহাম্মদ ফকির এবং সদরপুর সদরের খবির তালুকদার, হালিমুন নেছা ও ফাতেমা বেগম।

২০ অক্টোবর গোপনে মোহাম্মদ ফকিরের সঙ্গে ওই ছাত্রীর বিয়ে হয়। বিয়েটি নিবন্ধন না করে তারা নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে এ ঘোষণা দেন। বাল্যবিয়ের এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাধা দিলেও সহায়তা করেন মা ফাতেমা এবং নানা খবির ও নানি হালিমুন।

শুক্রবার রাতে নতুন জামাই হিসেবে মোহাম্মদ ফকির শ্বশুরবাড়িতে যান। এ সময় মোহাম্মদ ফকিরকে ধরে ইউএনওর কাছে খবর দেন মেয়েটির অন্য স্বজন ও প্রতিবেশীরা। রাত সাড়ে আটটার দিকে ইউএনও পূরবী গোলদার সেখানে গিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত চালিয়ে মোহাম্মদ ফকিরকে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। জরিমানা অনাদায়ে তাকে আরো তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এছাড়া ফাতেমাকে ছয় মাস এবং খবির ও হালিমুনকে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয় আদালত। দণ্ডিতদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ইউএনও পূরবী গোলদার।