৬ বন্ধু মিলে ধর্ষণ: ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে!

প্রকাশিত: 8:25 PM, November 19, 2020

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলায় এক গৃহবধূকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে তা দেখিয়ে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার টেংগারচর ইউনিয়নে ঘটনাটি ঘটে।

ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রায় আট বছর আগে তার বিয়ে হয়। তার স্বামী স্থানীয় একটি কারখানার শ্রমিক। দেড় বছর আগে নতুন বাড়িতে বৈদ্যুতিক তার ওয়ারিং করাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় ইলেকট্রিশিয়ান রফিকের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। ওই কাজ শেষ করার পরও রফিক তাদের বাড়িতে নিয়মিত যাতায়াত করতেন। সে সুবাদে তাদের সঙ্গে রফিকের একটি সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এদিকে একদিন ওই নারীর বাড়ি ফাঁকা থাকার সুযোগে রফিক কৌশলে তাকে কোমল পানীয়ের সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ করে রাখেন। পরবর্তীতে ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে গৃহবধূকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন তিনি।

এদিকে সেই ভিডিওর ভয় দেখিয়ে কয়েক মাস আগে রফিক ও তার পাঁচ-ছয় জন বন্ধু মিলে ওই গৃহবধূকে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুর এলাকায় নিয়ে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ করে রাখেন। লোকলজ্জার ভয়ে বিষয়টি তখন কাউকে না জানালেও সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়লে বাধ্য হয়ে আইনের আশ্রয় নেন ওই গৃহবধূ।

গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রইছ উদ্দিন বলেন, ‘এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। প্রাথমিক তদন্তে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হতে পেরেছেন তারা। তবে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের কোনো ঘটনা ঘটেছে কি না সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’