ঈদে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ১৭ নির্দেশনা

প্রকাশিত: 4:57 PM, July 29, 2020

আগামী ১ আগস্ট দেশব্যাপী পালিত হবে মুসলিম উম্মাহর ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা। এ লক্ষে ইতোমধ্যে চলছে শেষ সময়ের প্রস্তুতি। মহামারী করোনার কারণে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে জোর দিয়েই চলছে সব কাজ। তাই সিলেটে ঈদুল আজহাকে নিরবচ্ছিন্ন, নিরাপদ করতে ও জনসাধারণের সুবিধার্থে বেশ কিছু নির্দেশনা উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি)।

ঈদের জামাতে যাওয়ার সময় নগদ অর্থ, মোবাইল ফোন বহন করার ক্ষেত্রে সর্তক অবলম্বন করা এবং মাস্ক পরিধান করা, মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার না করা, বাসস্থান থেকে ওযু করে মসজিদে যেতে অনুরোধ করা হয়েছে এসএমপির উপ কমিশনার (মিডিয়া) জ্যোতির্ময় সরকার পিপিএম স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে। এছাড়া এতে বলা হয়েছে-

করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে মসজিদে জামাত শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো পরিহার করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন এবং বহনে সর্বদা সতর্ক থাকা এবং প্রয়োজনে অর্থ স্থানান্তরে পুলিশের সহায়তা নেওয়া। মোবাইল ফোনভিত্তিক আর্থিক লেনদেনকারী প্রতিষ্ঠান (যেমন বিকাশ, ইউক্যাশ, নগদ, রকেট ইত্যাদি) ব্যবহার করার ক্ষেত্রে প্রতারকচক্র হতে সর্বদা সজাগ থাকা। মাস্ক, পিপিই পরে চুরি, ডাকাতি রোধে পুলিশ পরিচয়ে বা অপরিচিত কাউকে বাসায় প্রবেশ করতে না দেওয়া। কোরবানির পশু সিটি কর্পোরেশনের নির্ধারিত স্থানে এবং ইউনিয়ন এলাকায় উপজেলা প্রশাসনের নির্ধারিত স্থানে জবাই করা। পশু জবাইয়ের বর্জ্য নিদিষ্ট জায়গায় রাখা, এ ক্ষেত্রে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের সঙ্গে যোগাযোগ করে পশু জবাইয়ের অস্থায়ী স্থান সম্পর্কে জানা। প্রতিটি পশুর হাটে জাল টাকা শনাক্তকরণ মেশিনে জাল টাকা পরীক্ষা করা। যানজট নিরসনে ব্যক্তিগত গাড়ি মসজিদ হতে দূরে পার্কিংয়ের স্থানে রাখা। ঈদ উপলক্ষে বাসা-বাড়িতে গৃহকর্মী নিযুক্ত করলে তাদের প্রতি বিশেষ নজর রাখা। বাসা ছেড়ে যাওয়ার আগে ফ্রিজ বন্ধ রাখা। এডিস মশার বংশ বিস্তার রোধে বালতি, গামলা, বদনা ইত্যাদি পানিশূন্য করে উপুড় করে রাখা।

ঈদ উপলক্ষে ছুটিতে গেলে বা বাসা ত্যাগ করলে বাসার দরজা-জানালা সঠিকভাবে তালাবদ্ধ করুন, বাসা/অফিসে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা ব্যবহার করা, দরজায় নিরাপত্তা এলার্মযুক্ত তালা ব্যবহার করা,মহল্লা ও বাড়ির সামনে সন্দেহজনক কাউকে/ দুষ্কৃতকারীকে ঘোরাফেরা করতে দেখলে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ি ও থানা পুলিশকে অবহিত করার জন্য বলা হয়েছে। ঈদের আগে/পরে সময় নিয়ে ভ্রমণ পরিকল্পনা করা। শেষ মুহূর্তে ট্রেন ও বাসের মারাত্মক ভিড় এড়িয়ে চলা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী হয়ে ট্রেন ও বাসে চলাচল করবেন না। যাত্রী সাধারণকে ট্রেন ও বাসের ছাদে এবং ট্রাকে করে ভ্রমণ না করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। পুরুষ ও নারী পকেটমার এবং প্রতারক চক্র হতে সর্তক থাকা। বাস টার্মিনালসমূহে, রাস্তায় ও হাটে আগত ক্রেতা-বিক্রেতারা কোনো অপরিচিত ব্যক্তি কাছে কোনো খাদ্যদ্রব্য গ্রহণ করবেন না। রাত্রিকালে জনবহুল রাস্তা দিয়ে চলাচল করার চেষ্টা করা। রাস্তায় চলাচলের সময় সঙ্গে থাকা মূল্যবান সামগ্রী বা টাকা পয়সা সম্পর্কে সাবধানতা অবলম্বন করা এবং কিংবা শেষ রাতে বাসস্ট্যান্ডে নামলে সতর্কতার সঙ্গে চলাচল করুন, প্রয়োজনে পুলিশের সহায়তা নেওয়া। ট্যাক্সি বা অটোরিকশা বা ভাড়ায় চালিত অন্যান্য গাড়ি ভাড়া করার সময় গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নম্বর এবং ড্রাইভারের নাম, ঠিকানা লিখে নিন। প্রয়োজনে ওই রেজিস্ট্রেশন নম্বর ও ড্রাইভারের নাম, ঠিকানা নিকটজনের নম্বরে এসএমএস করুন; সিএনজিতে আগ থেকে অপরিচিত যাত্রী বসা থাকলে তা এড়িয়ে চলুন। সন্দেহভাজন মোটরসাইকেল ব্যবহারকারী থেকে সতর্ক থাকা।

দোকান মালিকদের মার্কেট/শপিংমলে কোন নগদ অর্থ রাখবেন না, মার্কেট/শপিংমল ত্যাগের আগে অবশ্যই নিশ্চিত হোন যে, আপনার প্রতিষ্ঠান যথাযথভাবে তালাবদ্ধ করা হয়েছে, মালিক পক্ষ স্ব স্ব মার্কেট/শপিংমলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে বলা হয়েছে। সন্দেহজনক কোনো ব্যক্তি বা বস্তু প্রত্যক্ষ করলে নিম্ন বর্ণিত নাম্বারসমূহে অবহিত করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে। পুলিশ কমিশনার-০১৭১৩-৩৭৪৫০৬, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (সদর ও প্রশাসন) ০১৭১৩-৩৭৪৫০৭, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস)০১৭৬৯-৬৯১৩২৬, উপ পুলিশ কমিশনার (উত্তর) ০১৭১৩-৩৭৪৫০৯, উপ পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) ০১৭১৩-৩৭৪৫১০, উপ পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) ০১৭১৩-৩৭৪৫১১,ওসি কোতোয়ালি-০১৭১৩৩৭৪৫১৭, ওসি জালালাবাদ-০১৭১৩৩৭৪৫২২, ওসি এয়ারপোর্ট-০১৭১৩৩৭৪৫২১, ওসি দক্ষিণ সুরমা-০১৭১৩৩৭৪৫১৮, ওসি শাহপরাণ (র.)-০১৭১৩৩৭৪৩১০, ওসি মোগলাবাজার-০১৭১৩৩৭৪৫১৯, পুলিশ কন্ট্রোল রুম (২৪ ঘণ্টা খোলা) ০১৭১৩-৩৭৪৩৭৫, ০১৯৯৫-১০০১০০, ০৮২১-৭১৬৯৬৮, ট্রাফিক কন্ট্রোল রুম ০৮২১-৭১৮০২৮, ০১৯৬৬-৬০৬৬৩৬, জরুরি সেবা ৯৯৯।